30
Jul

আসবাবপত্র আদরযত্ন

সুন্দর ও আরামদায়ক ভাবে জীবনযাপন করতে প্রয়োজন হয় অনেক কিছুর। এগুলোর মধ্যে আসবাবপত্র অন্যতম। ব্যবহারিক প্রয়োজন মেটানোর পাশাপাশি সৌন্দর্য বর্ধনও আসবাবের একটি কাজ। তাই সুন্দর ও রুচিশীল আসবাবের প্রতি মানুষের আকর্ষণ দুনির্বার। সুদূর অতীত থেকেই আসবাবপত্র তৈরির অন্যতম উপাদান হিসেবে ব্যবহৃত হয়ে আসছে কাঠ। কাঠের তৈরি আসবাবপত্র আভিজাত্যের প্রতীক হিসেবে বিবেচিত হয়।

ঘরে উষ্ণ ও ঐতিহ্যময় পরিবেশ সৃষ্টি করতে কাঠের আসবাবের জুড়ি নেই। ভালো কাঠের আসবাব কিনতে পারলে তা টিকেও থাকে বহুদিন। তবে এর জন্য প্রয়োজন একটুখানি যত্নের। সময়ের সাথে সাথে এবং প্রতিদিনের ব্যবহারের ফলে কাঠের জিনিসে পড়ে যায় অনেক দাগ। অনেক সময় ছোপ ছোপ দাগের ফলে দেখতে বেশি পুরোনো পুরোন লাগে! সঠিকভাবে যত্ন নিতে পারলে কাঠের জিনিস ভালো রাখা সম্ভব বহুদিন পর্যন্ত।

রোয়া উপায়ে কাঠের আসবাবপত্র দাগমুক্ত ও ভালো রাখার কিছু উপায় –

  • কাঠের আসবাবপত্র সব সময় শুকনো কাপড় দিয়ে পরিষ্কার করুন। অনেক সময় কাঠের জিনিস মুছতে গিয়ে তাতে আঁচড়ের দাগ পড়ে যায়। এই দাগ তুলতে সামান্য বেকিং সোডার সাথে পানি মিশিয়ে নিয়ে তাতে একটা নরম কাপড় ভিজিয়ে দাগের জায়গাটা মুছে দিন।
  • কাঠের ডাইনিং টেবিলে সবসময় টেবিল ম্যাট, রানার ও কোস্টার ব্যবহার করুন। কারণ এর ওপর দিয়ে জোরে কিছু টানলে দাগ পড়ে যেতে পারে। কাঠের টেবিলে পানি পড়লে অনেক সময় দাগ হয়ে যায়। একটি নরম কাপড়ে মেয়নেজ দিয়ে জায়গাটা মুছে নিন। ঘণ্টাখানেক পর ভেজা কাপড় দিয়ে জায়গাটা মুছে ফেলুন। দাগ উঠে গিয়ে টেবিল আবার আগের মতো চকচকে হয়ে উঠবে।
  • গরম জিনিস রাখার ফলে কাঠের টেবিলে অনেক সময় সাদা সাদা ‘হিট স্টেইন’ পড়ে যায়। এই সাদা দাগের ওপর টুথপেস্ট ও বেকিং সোডা মিশিয়ে হালকা ঘষে লাগিয়ে রাখুন। কিছুক্ষণ পর তুলে ফেলুন। এভাবে কয়েকবার মিশ্রণটি ব্যবহার করলে সাদাভাবটা অনেকখানি কমে যাবে।
  • কাঠের আসবাবে মসৃণ ও চকচকে ভাবটা ধরে রাখতে অলিভ অয়েল ও লেবুর রসের মিশ্রণ তৈরি করুন। এই মিশ্রণ দিয়ে সপ্তাহে একবার আসবাবপত্র মুছুন। এতে কাঠের চকচকে ভাব থাকবে দীর্ঘদিন এবং সহজে ছোপ ছোপ দাগ পড়বে না।