02
May

সাপ্তাহিক চর্চা ………..

ঘর বাড়ির যত্ন… কথাটা খুব বেশী বেশী একঘেয়েমি।

মাঝে মাঝে সাপ্তাহিক ছুটিগুলো মাটি করে দেয় এই ঘরের কাজ। প্রায় প্রতি সপ্তাহে আম্মুর নির্দেশনায় ফ্রিজ পরিষ্কার করা, ফ্যান, ওভেন পরিষ্কার করা কিংবা ক্রোকারিজ কেবিনেট ধুয়ে মুছে পরিষ্কার করার ভয়ে বাসা থেকে পালিয়ে বেড়াই। ফলাফল স্বরূপ পরের সপ্তাহে আম্মু হাসিমুখে আগের সপ্তাহের কাজের সাথে আরেকটি নতুন ‘মিশন’ আমার হাতে ধরিয়ে দেয়।

তবে এই সমস্যার কোন স্থায়ী সমাধান নেই। এক দুই সপ্তাহও পালিয়ে বেড়ানো যায়, কিন্তু শুক্রবারের আম্মুর হাতের দুপুর বেলার সুস্বাদু খাবারের কথা মনে হলে ‘ভেজা বেড়াল’ হয়ে ঘরেই ফেরত আসতে হয়।

এই সপ্তাহের আমার কাজের দায়িত্ব ফ্যান এবং ওভেন পরিষ্কার করা।

মিশন -১ : ফ্যান পরিষ্কার

সিলিং ফ্যান একটু বেশি ময়লা হয়। দীর্ঘদিন ব্যবহার হয় না বলেই ধুলোময়লার পরত জমে জমে পুরু স্তরের সৃষ্টি হয়। রান্নাঘরে ফ্যান থাকলে তো তার আরো খারাপ অবস্থা হয়। চিটচিটে এই ময়লা শুধু মুছলেই পরিষ্কার হয় না। আঠালো চিটচিটে ভাব থেকেই যায়।

ফুটন্ত গরম পানিতে সামান্য ভিনেগার মিশিয়ে নিই। পানির উত্তাপ কমে এলে এতে কাপড় কাচার ডিটারজেন্ট গুলে নেই। এই মিশ্রণে সুতি কাপড় ভিজিয়ে ফ্যান পরিষ্কার করি। ফ্যানের চিটচিটে ময়লা পরিষ্কার হয়ে যাবে নিমেষেই।

মিশন – ২ : ওভেন পরিষ্কার

খাবার গরম করা থেকে শুরু করে রান্না – চটজলদি সারতে ওভেন ছাড়া গতি নেই। অনেক সময় খাবারের গন্ধ ওভেনের ভেতরে থেকে যায়। কয়েক ধরনের খাবারের গন্ধ একসাথে মিশে বিশ্রী গন্ধ তৈরি হয়। অল্প সময়েই কিন্তু দূর করা যায় এই গন্ধ।

একটি বাটিতে ১ কাপ পানি ও দুই টুকরা পাতিলেবু দিয়ে মাইক্রোওয়েভ ওভেনে ১ মিনিট গরম করতে হবে। ১ মিনিট হয়ে গেলে পানিটা ওভেনেই ঠাণ্ডা হতে দেই। ঠাণ্ডা হয়ে যাওয়ার পর পানির বাটি বের করে নিতে গেলেই দেখবো গন্ধটা আর নেই।

এই সপ্তাহে আমার কাজের পারদর্শিতায় আম্মু বলেছে পরের সপ্তাহে কোন কাজ দিবেনা। যদিও জানি এই কথাটা ‘দুধ-ভাত’  সান্ত্বনা। তবে ব্যাপার না। আমিও আমার নতুন নতুন টিপস ব্যাবহার করে অত্যন্ত ‘সাহসিকতার’ সাথে কাজগুলা করে ফেলবো।